1. admin@meghnarkagoj.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সন্তানকে নিয়ে হলে এসে এসএসসি পরীক্ষা দিলেন যমজ দুইবোন! দেবিদ্বারে যুব মহিলা লীগের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯২তম জন্ম বার্ষিকীতে দোয়া ও আলোচনা সভা দেবিদ্বারে এমপি-চেয়ারম্যানের দ্বন্ধের তদন্ত প্রতিবেদন ১৫ কার্য দিবসে প্রধান মন্ত্রীর কাছে জমাদানের নির্দেশ আ’লীগ সভাপতি উপর হামলা ও এমপি রাজী’র নামে অপপ্রচারের প্রতিবাদে দেবিদ্বারে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল দেবিদ্বারে শান্ত হত্যাকান্ডে দুই আসামী গ্রেফতার, খুনিদের গডফাদারকে আইনের আওতায় আনার দাবী এলাকাবাসীর মাহবুবুর রহমানের মাতৃ বিয়োগে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ বাহরাইন জেলা শাখার শোক দেবিদ্বারে উপজেলা চেয়াম্যানের পানিবন্দী ৫০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ দেবিদ্বারে বড় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে ছোট ভাই খুন দেবিদ্বারে নবাগত ওসি কমল কৃষ্ণ ধরের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় দেবিদ্বারে ছাত্র বলৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

সন্তানকে নিয়ে হলে এসে এসএসসি পরীক্ষা দিলেন যমজ দুইবোন!

দৈনিক মেঘনার কাগজ
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৭৬ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্টঃ

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে ২ মাস বয়সী সন্তানকে নিয়ে হলে এসে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন যমজ দুইবোন। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুই বোন তাদের নিজ নিজ সন্তান কোলে কেন্দ্রে প্রবেশ করলে সেখানে ব্যাপক কৌতূহলের সৃষ্টি হয়। এসময় পরীক্ষা শুরু হলে তারা তাদের দুই সন্তানকে মা ও খালা’র কাছে দিয়ে পরীক্ষার হলে ঢোকেন।

যমজ দুই বোন উম্মে কুলসুম ও উম্মে ফাতেমা সারিয়াকান্দি উপজেলার বড়ইকান্দি বিমানবন্দরপাড়ার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রঞ্জু মিয়ার মেয়ে। তারা নিজাম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছেন। সারিয়াকান্দি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা দিচ্ছেন তারা। দু’জনের পরীক্ষাই ভালো হয়েছে বলে তারা জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী বাবা রঞ্জু মিয়া করোনাকালীন সময়ে অতি-আর্থিক দৈন্যতায় পরে দুই মেয়েকে বিয়ে দেন। কুলসুমের উপজেলার সদর ইউনিয়নের পারতিতপরল গ্রামে এবং ফাতেমাকে পাশের গাবতলী উপজেলার দাঁড়াইল বিয়ে দেন। সে সময় তারা দু’জনেই নবম শ্রেণীতে পড়তেন। তাদের স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকজনের উৎসাহে তারা দু’জন এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছেন। গত ২ মাস আগে তাদের দু’জনের কোলজুড়ে ছেলে ও মেয়ে সন্তান আসে।

উম্মে কুলসুম ও উম্মে ফাতেমা জানান, তাদের লেখাপড়া করার খুব ইচ্ছে ছিলো। কিন্তু করোনাকালে স্কুল বন্ধ থাকায় এবং তাদের বাবা ব্যবসায় ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় তাদের বিয়ে দেওয়া হয়েছিলো। তারা ভেবেছিলেন তাদের লেখাপড়া শেষ। কিন্তু শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাদের এসএসসি পরীক্ষা দিতে উৎসাহ যোগান। এরপর তারা প্রস্তুতি নিয়ে পরীক্ষা দিতে এসেছেন।

তারা জানান, তাদের ছোট দুই বাচ্চাকে বাইরে মা ও খালাকে দিয়ে হলে ঢুকেছিলেন। পরীক্ষার সময় বার বার চিন্তা হচ্ছিলো বাচ্চারা কান্না করছে কিনা। এরপরেও তারা পরীক্ষা ভালো দিয়েছেন।

আরো পড়ুন :  আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিলেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার মোহাম্মদ হাফিজ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা