1. admin@meghnarkagoj.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:৪০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সন্তানকে নিয়ে হলে এসে এসএসসি পরীক্ষা দিলেন যমজ দুইবোন! দেবিদ্বারে যুব মহিলা লীগের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯২তম জন্ম বার্ষিকীতে দোয়া ও আলোচনা সভা দেবিদ্বারে এমপি-চেয়ারম্যানের দ্বন্ধের তদন্ত প্রতিবেদন ১৫ কার্য দিবসে প্রধান মন্ত্রীর কাছে জমাদানের নির্দেশ আ’লীগ সভাপতি উপর হামলা ও এমপি রাজী’র নামে অপপ্রচারের প্রতিবাদে দেবিদ্বারে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল দেবিদ্বারে শান্ত হত্যাকান্ডে দুই আসামী গ্রেফতার, খুনিদের গডফাদারকে আইনের আওতায় আনার দাবী এলাকাবাসীর মাহবুবুর রহমানের মাতৃ বিয়োগে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ বাহরাইন জেলা শাখার শোক দেবিদ্বারে উপজেলা চেয়াম্যানের পানিবন্দী ৫০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ দেবিদ্বারে বড় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে ছোট ভাই খুন দেবিদ্বারে নবাগত ওসি কমল কৃষ্ণ ধরের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় দেবিদ্বারে ছাত্র বলৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

কুমিল্লা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া মহাসড়ক চার লেনে উন্নিত হচ্ছে, ৫ দেশের সঙ্গে খুলছে অর্থনৈতিক সম্পর্কের সম্ভাবনার দুয়ার

দৈনিক মেঘনার কাগজ
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২১ মার্চ, ২০২২
  • ১৮৬ বার পঠিত

শাহিদুল ইসলামঃ

কোথাও সড়কের পিচ উঠে গেছে, কোথাও ছোটবড় অসংখ্য গর্ত। কোথাও সড়ক দেবে গেছে, কোথাও চলছে খোঁড়াখুঁড়ি। শীত ও গ্রীষ্মে সড়কজুড়ে ধুলাবালু ওড়াউড়ি করে আর বর্ষায় সড়ক হয়ে ওঠে কাদাময়।

কুমিল্লা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া মহাসড়কের কুমিল্লা অংশের ৫৪ কিলোমিটার এলাকার বেশির ভাগেই এ অবস্থা। এতে গুরুত্বপূর্ণ এই মহাসড়কে যানবাহন বিকল হয়ে প্রায়ই মারাত্মক দূর্ঘটনাসহ যানজট লেগেই থাকে। ভোগান্তি ও অনেকটা ঝুঁকি নিয়েই মানুষ গন্তব্যে পৌঁছায়।

সড়ক ও জনপথ (সওজ) কুমিল্লার প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন, চলতি বছরের ডিসেম্বরেই চার লেনে উন্নীত হচ্ছে কুমিল্লা (ময়নামতি)-ব্রাহ্মণবাড়িয়া (ধরখার) ৫৪ কিলোমিটার জাতীয় মহাসড়ক। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে ভারত, ভুটান, নেপাল, মিয়ানমার ও চীন এই ৫ দেশের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বাড়বে।

প্রকল্পটির কাজ ডিসেম্বরের আগে শুরু না হওয়া পর্যন্ত যান চলাচল স্বাভাবিক করতে বিচ্ছিন্নভাবে সংস্কারকাজ চলছে। সংস্কারকাজ ও সড়কের প্রশস্থ কম হওয়ায় ভোগান্তি বেড়েছে।

‘কুমিল্লা (ময়নামতী)-ব্রাহ্মণবাড়িয়া (ধরখার) জাতীয় মহাসড়ককে চার লেন জাতীয় মহাসড়কে উন্নীতকরণ’ শীর্ষক প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর (সওজ)।

রোববার দুপুরে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সিনিয়র সকহারী সচিব (পরিকল্পনা ও সমন্বয় শাখার অতিরিক্তি দায়িত্বসহ) আবদুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, ‘কুমিল্লা থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পর্যন্ত ৫৪ কিলোমিটার সড়ককে ৪ লেনে উন্নীত করা হবে। ৭ হাজার ৪১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। এরমধধ্যে ভারতীয় ঋণ থেকে পাওয়া যাবে ২ হাজার ৯১৮ কোটি ৭২ লাখ টাকা।

বাকি সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা সরকারি অর্থায়ন। সড়কটি দেশের অর্থনৈতিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর মাধ্যমে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে পাঁচটি দেশের সঙ্গে সড়ক পথে অর্থনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলা সম্ভব।

সওজ সূত্র জানায়, প্রস্তাবিত এই প্রকল্পের আওতায় উভয় পাশে আলাদা দুটি লেনসহ ৫৪ কিলোমিটার দীর্ঘ চার লেন প্রশস্ত সড়ক তৈরি করা হবে। কুমিল্লা জেলার বুড়িচং, দেবীদ্বার, মুরাদনগর, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা ও আখাউড়া উপজেলায় বাস্তবায়িত হবে। বাজার এলাকার জন্য ৪ দশমিক ৪৭ কিলোমিটার ফুটপাত নির্মাণ করা হবে। এছাড়া, প্রকল্পের আওতায় ১৪টি ব্রিজ, একটি ফ্লাইওভার, দুটি আন্ডারপাস, ৫০টি কালভার্ট ও ১২টি ফুটওভারব্রিজ নির্মাণ করা হবে। ফলে দ্রুত ও নিরাপদ যান চলাচল নিশ্চিত হওয়াসহ আর্থসামাজিক উন্নয়ন ঘটবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

আরো পড়ুন :  ঝালকাঠিতে তেলবাহী লড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু, স্বজনদের আহাজারি

চার লেনের এই সড়ক তৈরি হলে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে আঞ্চলিক সংযোগ সড়ক দৃঢ় হবে। চট্টগ্রাম বন্দর আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাবে।

সূত্র আরো জানায়, টেকনিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্স ফর সাব রিজিওনাল রোড ট্রান্সপোর্ট প্রজেক্ট প্রিপারেটরি ফ্যাসিলিটি (এসআরটিপিপিএফ) প্রকল্পের পরামর্শকের মাধ্যমে জরিপসহ বিশদ নকশা প্রণয়ন করা হয়েছে। নকশার রিপোর্টের ভিত্তিতে প্রকল্পে ডিপিপি (উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব) তৈরি করা হয়েছে। প্রকল্পের ডিপিপিতে ১৪ লাখ ৫০ হাজার ৫৬০ ঘনমিটার মাটির কাজের জন্য ২১৪ কোটি ১৩ লাখ টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া প্রকল্পের আওতায় ৬৮০ বর্গমিটার অফিস বিল্ডিং নির্মাণের জন্য ২ কোটি ৩৮ লাখ টাকার প্রস্তাাব করা হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় ৪৯ দশমিক ৫৩ কিলোমিটার ফ্লেক্সিবল পেভমেন্ট নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার ১৭৮ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এ ক্ষেত্রে প্রতি মিটারের দাম পড়েছে ২ লাখ ৩৭ হাজার নয় টাকা। প্রস্তাবিত প্রকল্পের আওতায় ৪৩৮ দশমিক ৯১ মিটার ফুটওভারব্রিজ নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯০ কোটি ৬৭ লাখ ৫৯ হাজার টাকা। এ ক্ষেত্রে মিটারপ্রতি খরচ পড়বে ২০ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। প্রকল্পের আওতায় জেনারেল সাইট ফ্যাসিলিটিজের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৭ কোটি ৭১ লাখ টাকা। প্রকল্পে পাবলিক ইউটিলিটি শিফটিং বাবদ ৩৮ কোটি ৮৯ লাখ ৬৯ হাজার টাকা ব্যয় দেখানো হয়েছে। এর আওতায় চারটি জিপ, ৬টি পিকআপ, ৮টি মোটরসাইকেল কেনা হবে। পাশাপাশি ৬৮০ ঘন মিটার অফিস ভবন, ইউটিলিটি স্থানান্তর, নির্মাণকালীন রক্ষণাবেক্ষণ, ট্রাফিক সাইন, সিগন্যাল ও দিক-নির্দেশক চিহ্ন তৈরি করা হবে।

তবে চার লেন সড়কের মালামাল কেনাকাটার ৬৫ শতাংশ করতে হবে ভারত থেকে। তখন বলা হয়েছিল, ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২২ সালের জুন মাসের মধ্যে কাজটি শেষ হবে, কিন্তু এখন পর্যন্ত ওই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়নি। ফলে এই মহাসড়ক নিয়ে ভোগান্তিতে পড়েছেন সওজের প্রকৌশলী ও কর্মকর্তারা। চার লেনের আশায় বসে থাকতে থাকতে পাঁচ বছর ধরে ওই মহাসড়কে দফায় দফায় সংস্কারকাজ করেও সড়ক টেকানো যাচ্ছে না। ভারী যানবাহন ও মাত্রাতিরিক্ত যানবাহনের কারণে মহাসড়কে ভোগান্তি ক্রমশ বাড়ছে।

আরো পড়ুন :  দেবীদ্বারে সাথী ফসল হিসাবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে বাঙ্গি’র চাষ

সওজের অন্তত তিন প্রকৌশলী জানান, দেশ ভাগের সময় এই সড়কে প্রথমে ইট বসানো হয়। পরে পর্যায়ক্রমে ইটের ওপর কার্পেটিং করা হয়। পরে বিভিন্ন সময়ে কার্পেটিংয়ের স্তর উঁচু করা হয়। কিন্তু সড়কের কাঠামো না থাকায় উন্নয়নকাজ টেকে না।

সরেজমিন গত শনিবার দুপুরে ঘুরে দেখা গেছে, মহাসড়কের বুড়িচং উপজেলার দেবপুর এলাকার সড়কের আরসিসি ঢালাই অংশ ভেঙে গেছে। কংশনগর এলাকায় খানাখন্দ। দেবীদ্বারের বারেরা এলাকায় ব্র্যাক অফিসের সামনের অংশ খানাখন্দে ভরা। একই এলাকায় সড়কের গর্তের মধ্যে কাদা জমে আছে। সড়কের বিভিন্ন স্থানে পিচ উঠে গেছে। দেবীদ্বার পৌরসভার নিউমার্কেট এলাকায় আরসিসি ঢালাই ভেঙে গেছে। দেবীদ্বার থানা ফটক থেকে মহিলা কলেজ পর্যন্ত ছয়টি অংশের ঢালাই ভেঙে ইটসুরকি ও রড বের হয়ে গেছে। ওই কারণে যান চলাচল ব্যাহতসহ প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনা ঘটছে।

যাত্রীবাহী বাস জনতা বাসের চালক মো. মেহেদী হাসান বলেন, ‘জান বাজি রেখে এ রোডে বাস নিয়ে যাওয়া আসা করি। কিন্তু সড়ক ঠিক হচ্ছে না।

২০১৯-২০ অর্থবছরে ২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে কুমিল্লার ময়নামতি থেকে বুড়িচং উপজেলার দেবপুর, কংশনগর, দেবীদ্বার উপজেলার বারেরা, দেবীদ্বার পৌর এলাকা ও মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ এলাকার ২২ কিলোমিটার সড়কের সংস্কারকাজ করা হয়েছিলো। সেসময় একেকটি অংশ ঢালাই দেওয়ার পর অন্তত ২৮ দিন যান চলাচলের জন্য বন্ধ রাখতে হয়। কিন্তু ১৮ ফুট প্রস্থ সড়কের একপাশের ৯ ফুট বন্ধ থাকলে পুরো সড়কের মধ্যে যানজট লেগে থাকতো যা এখনো লেগে থাকে। ওই কারণে ভোগান্তি হচ্ছে। গত ২০২১ সালের ৯ ডিসেম্বর ওই কাজ শুরু হয়। চলতি বছরের ৮ জানুয়ারী ওই কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সব কাজ শেষ হয়নি। এ অবস্থায় নতুন করে আবার সংস্কার করতে উদ্যোগ নেওয়া হয়।

দেবীদ্বারের বাসিন্দা ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি কুমিল্লা জেলা শাখার সভাপতি এ বি এম আতিকুর রহমান বলেন, দেশের উত্তর ও পূর্বাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক এটি। চার লেন করে প্রস্থ বাড়িয়ে দুর্ভোগ কমাতে হবে। অন্যথায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা সড়কে বসে থাকতে হয়।

আরো পড়ুন :  বিতর্ক মাথায় নিয়ে দেশ ছাড়লেন ডা. মুরাদ হাসান

সওজ কুমিল্লা অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী সুনীত চাকমা বলেন, ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে ঋণচুক্তির আওতায় এই মহাসড়ক চার লেন করা হবে। এটি নিয়ে এত দিন চিঠি চালাচালি হয়েছে। প্রকল্প অনুমোদন হলে কাজ শুরু হবে। এখন বিভাগীয়ভাবে সংস্কারকাজ করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা