1. admin@meghnarkagoj.com : admin :
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সন্তানকে নিয়ে হলে এসে এসএসসি পরীক্ষা দিলেন যমজ দুইবোন! দেবিদ্বারে যুব মহিলা লীগের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯২তম জন্ম বার্ষিকীতে দোয়া ও আলোচনা সভা দেবিদ্বারে এমপি-চেয়ারম্যানের দ্বন্ধের তদন্ত প্রতিবেদন ১৫ কার্য দিবসে প্রধান মন্ত্রীর কাছে জমাদানের নির্দেশ আ’লীগ সভাপতি উপর হামলা ও এমপি রাজী’র নামে অপপ্রচারের প্রতিবাদে দেবিদ্বারে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল দেবিদ্বারে শান্ত হত্যাকান্ডে দুই আসামী গ্রেফতার, খুনিদের গডফাদারকে আইনের আওতায় আনার দাবী এলাকাবাসীর মাহবুবুর রহমানের মাতৃ বিয়োগে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ বাহরাইন জেলা শাখার শোক দেবিদ্বারে উপজেলা চেয়াম্যানের পানিবন্দী ৫০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ দেবিদ্বারে বড় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে ছোট ভাই খুন দেবিদ্বারে নবাগত ওসি কমল কৃষ্ণ ধরের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় দেবিদ্বারে ছাত্র বলৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না ছুরিকাঘাতে আহত কাকলির

দৈনিক মেঘনার কাগজ
  • আপডেট সময় : রবিবার, ২০ মার্চ, ২০২২
  • ২৪৬ বার পঠিত

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ

শরীয়তপুরে ছুরিকাঘাতে আহত কাকলি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। রোববার তার গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান ছিল, সোমবার ছিল বিয়ের দিন।
রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে সোমবার ভোরে কাকলির মুত্যু হয়। বৃহস্পতিবার রাতে ছুরি হামলায় গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি।

নিহত কাকলির মা ফরিদা বেগম মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কাকলি শরীয়তপুর সদর উপজেলার চরপালং গ্রামের দুবাই প্রবাসি নুরুজ্জামান মাদবরের মেয়ে। শরীয়তপুর ইসলামিয়া কামিল মাদরাসার দাখিলের ছাত্রী ছিলেন তিনি।

মা ফরিদা বেগমের অভিযোগ, ওই মাদরাসারই সাবেক ছাত্র জাহিদুল ইসলাম তার মেয়েকে বিভিন্ন সময় উত্ত্যক্ত করতেন। পরিবারের কাছে বিয়ের প্রস্তাবও দেন। কিন্তু জাহিদুলের কাছে মেয়েকে বিয়ে দিতে রাজি হননি তারা।

তিনি জানান, সম্প্রতি অন্যত্র কাকলির বিয়ে ঠিক করেন তারা। রোববার তার গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান ছিল। আর সোমবার ছিল বিয়ের দিন। সে অনুযায়ী বাড়িতে বিয়ের আয়োজনের প্রস্তুতি চলছিল।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে ঘরে ঢুকে কাকলিকে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন জাহিদুল। তার চিৎকারে পালিয়ে যাওয়ার সময় জাহিদুলকে ধরে পিটুনি দেয় এলাকার মানুষ।

খবর পেয়ে পুলিশ দুজনকেই উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। উন্নত চিকিৎসার জন্য বৃহস্পতিবার রাতে দুজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। অবস্থার অবনতি হলে কাকলিকে সেখান থেকে ধানমন্ডির একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিউতে নেয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার ভোরে সেখানে তার মুত্যু হয়।

ফরিদা বেগম বলেন, আমার মেয়েরে যে মারছে, তার বিচার চাই। ওর কোনো দোষ ছিল না। আমার মাইয়াডারে ওই জানোয়ার কোপায়া মাইরা ফালাইছে। ওর যন্ত্রণায় আমার মাইয়ার বিয়া ঠিক করছি। হেই মাইয়া মাইরা ফালাইল।

ভাই ফারুক মাদবর বলেন, আমার বইনের বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে। আজ (রোববার) গায়ে হলুদ ছিল। এই কথা জেনে ওই বখাটে আমার বইনকে ছুড়ি দিয়া আঘাত করছে। আমরা হাসপাতালে নিয়ে গেলে ঢাকা রেফার করে। ঢাকায় আইসিউতে ছিল। আজ মারা গেছে।

আরো পড়ুন :  আনারস প্রতীকের আদলে মাথা সাজিয়ে ভোটের প্রচার

বোনের বিচার চেয়ে তিনি বলেন, বিনা দোষে আমার বোনের মরতে হলো। আমরা এর বিচার চাই।

এ বিষয়ে পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তার হোসেন বলেন, ওই তরুণীকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় তার ভাই একটি হত্যা চেষ্টা মামলা করেছিলেন। মামলাটি এখন হত্যা মামলায় নথিভুক্ত করা হবে। ওই মামলায় জাহিদুলকে আসামি করা হয়েছে। এলাকার মানুষের পিটুনিতে সে হাসপাতালে ভর্তি আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা