1. admin@meghnarkagoj.com : admin :
শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৯:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দেবিদ্বার পৌর নির্বাহী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য প্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন দেবিদ্বারে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারর্স এসেসিয়েশন’র ঈদ পুণর্মিলনী ও আলোচনা সভা দেবিদ্বারে সুবিল ইউনিয়ন আ’লীগের উদ্যোগে আয়োজিত ইফতার মাহফিল দেবিদ্বার প্রাইভেট হসপিটাল এন্ড ডায়োগনেষ্টিক সেন্টার মালিক সমিতির আয়োজনে ইফতার ও দোয়া মাহফিল দেবিদ্বারে চাঁদাবাজির প্রতিবাদে শ্রমীকদের কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ,ঘন্টাব্যাপি তীব্র যানযট কুমিল্লা (উঃ) জেলা আওয়ামীলীগের সংবাদ সম্মেলন ও সাংবাদিক মতবিনিময় দেবীদ্বারে সাথী ফসল হিসাবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে বাঙ্গি’র চাষ দেবীদ্বারে শতাধিক অসহায়ের মাঝে যুবলীগের ইফতার সামগ্রী বিতরণ দেবীদ্বারের শিক্ষানুরাগী অফিসার ইনচার্জ মোঃ আরিফুর রহমানের মানবিকতা দেবীদ্বার উপজেলা আ’লীগের কমিটি গঠনে জেলা সাংগঠনিক টিমের প্রথম সভায় গুরুত্বপুর্ন সিদ্ধান্ত

দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে চান নৌকার মাঝি আলহাজ্ব ইউনুস মাষ্টার

দৈনিক মেঘনার কাগজ
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ৭ জানুয়ারি, ২০২২
  • ৮৮ বার পঠিত

দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা দেবিদ্বার উপজেলার ১নং বড় শালঘর ইউনিয়নে নৌকার মাঝি ইউনুস মিয়া মাস্টার , তিনি ১৯৭৩ সনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতার মাধ্যমে কর্ম জীবন শুরু করেন। আওয়ামী লীগের রাজনীতি’র সাথে সক্রিয় থাকায় ২০০১ সালে বিএনপি নেতার মামলা -হামলায় শিকার হয়ে সিনিয়র নেতৃবৃন্দের নির্দেশে সেচ্ছায় চাকুরী থেকে অবসরে চলে আসেন।

১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। ১৯৭১ সনে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করার পরিকল্পনা করায় গোপন খবর পেয়ে পাকবাহিনী কর্তৃক তার বাড়ি ঘর জ্বালিয়ে দেওয়া হলে তিনি বৃদ্ধ মা-বাবাকে নিয়ে আত্নগোপনে চলে যান এবং মুক্তিযুদ্ধাদের সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত রাখেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক উপদেষ্টা চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব ইউনুস মিয়া মাষ্টার ১৯৬৮ সালে বড়শালঘর ইউ এম এ উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্র সংসদ নির্বাচনে মুসলিম লীগের বিপক্ষে ছাত্রলীগের প্যানেল দেন। বর্তমানে তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

বড়শালঘর ইউ এম এ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩ বারের নির্বাচিত সদস্য ও সৈয়দপুর কামিল মাদ্রাসার ১ বারের নির্বাচিত সদস্য ছিলেন, এবিএম গোলাম মোস্তফা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসাবে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। বড়শালঘর নতুন বাজার ও বড়শালঘর নতুন বাজার জামে মসজিদের সেক্রেটারি হিসাবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন ও বড়শালঘর উত্তর পারা ফোরকানিয়া মাদ্রাসা ও মসজিদের দীর্ঘদিন যাবত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক ও ব্যবসায়ী সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

তিনি আশাবাদী হয়ে বলেন, যেহেতু আমি নিষ্ঠার সাথে দীর্ঘদিন ধরে বড়শালঘর ইউনিয়নের জনগনের পাশে আছি। জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছেন এখন আমি ইউনিয়নের সাধারণ জনগণ ও আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করে বঙ্গকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে বিজয় উপহার দিব ইনশাআল্লাহ। নিজের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য নয়, এলাকার উন্নয়ন ও সাধারণ জনগণের জন্য কাজ করতে চাই। আমি ১নং বড়শালঘর ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণের কাছে দোয়া ও সমর্থন কামনা করছি।

আরো পড়ুন :  ধর্ষণের পর শত অনুরোধেও মন গলেনি খুনিদের

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা