1. admin@meghnarkagoj.com : admin :
শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৯:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দেবিদ্বার পৌর নির্বাহী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য প্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন দেবিদ্বারে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারর্স এসেসিয়েশন’র ঈদ পুণর্মিলনী ও আলোচনা সভা দেবিদ্বারে সুবিল ইউনিয়ন আ’লীগের উদ্যোগে আয়োজিত ইফতার মাহফিল দেবিদ্বার প্রাইভেট হসপিটাল এন্ড ডায়োগনেষ্টিক সেন্টার মালিক সমিতির আয়োজনে ইফতার ও দোয়া মাহফিল দেবিদ্বারে চাঁদাবাজির প্রতিবাদে শ্রমীকদের কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ,ঘন্টাব্যাপি তীব্র যানযট কুমিল্লা (উঃ) জেলা আওয়ামীলীগের সংবাদ সম্মেলন ও সাংবাদিক মতবিনিময় দেবীদ্বারে সাথী ফসল হিসাবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে বাঙ্গি’র চাষ দেবীদ্বারে শতাধিক অসহায়ের মাঝে যুবলীগের ইফতার সামগ্রী বিতরণ দেবীদ্বারের শিক্ষানুরাগী অফিসার ইনচার্জ মোঃ আরিফুর রহমানের মানবিকতা দেবীদ্বার উপজেলা আ’লীগের কমিটি গঠনে জেলা সাংগঠনিক টিমের প্রথম সভায় গুরুত্বপুর্ন সিদ্ধান্ত

“যে যাবার সে গেছে – ফিরবেনাতো কভু,স্মৃতির পাতা উলটে এবার দেখতে পার শুধু “।।

দৈনিক মেঘনার কাগজ
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৮৬ বার পঠিত
১৯৯৭ সালের ১৮ই ডিসেম্বর, আমার পিতা মৃত; শফিকুল ইসলাম (সাব ইন্সপেক্টর অব পুলিশ) মাত্র ১৮ দিন আগে ৬ মাস বেড রেষ্টের শর্তে হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতাল থেকে ঢাকার বাসায় এসেছেন। তখন তিনি কুলাউড়া জি আর পি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা,সবাইর বাধা উপেক্ষা করে কর্মস্থলে ফিরে গেলেন। উনার যুক্তি একটু কষ্ট করে একবার কুলাউড়া পৌছুতে পারলে আর তেমন কোন ভারি কাজ নেই অফিস আর বাসা যেহেতু পাশাপাশি একরকম রেষ্টেই থাকবেন। আত্মপ্রত্যয়ী পিতাকে আর বাধা দিয়ে রাখতে না পেরে আম্মা সহ এইদিন রাতের সিলেটগামী সুরমা মেইলের একটি ফাষ্টক্লাস রুমে উঠিয়ে দিয়ে বিষন্ন মনে বাসায় চলে আসলাম। দু-দিন বাদে ২১ ডিসেম্বর কি যেন একটা কাজে দেবিদ্বার আসি এবং মনস্থির করি কাল ২২ ডিসেম্বর ঢাকা ফিরে যাব। বিকাল ৩ টায় প্রথম দেবিদ্বার থানার ওয়ারলেস মারফত বাবার মৃত্যু সংবাদ বড় চাচা ( জেঠা) হাজি নুরুল আমিন এবং বড় আলমপুর ( বিনাইপার) সাবেক চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন সাহেবের কাছে এলে আমাকে জানানো হয়,বাবা আবারো অসুস্থ হয়ে পড়েছে, উনাকে এদিক দিয়ে বাড়ির সবাইর সাথে দেখা করতে চান তাই কুমিল্লা (দেবিদ্বার) হয়ে ঢাকা নিয়ে যাওয়া হবে। আবার কারো কাছে অস্পষ্ট শুনছি বাবা মারা গেছেন। আমি কিছুই বিশ্বাস না করে গ্রামের বাড়ি বারেরায় চলে আসি এবং অনেকটা উৎকন্ঠা আর অস্বস্তি নিয়ে এক সময় রাত ১টার দিকে কিভাবে যেন ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। ঘুম ভাঙ্গল মায়ের তিব্র আর্তনাদ আর ঝাকুনি খেয়ে “তোমার বাবাকে নিয়ে এসেছি”। হুড়মুড় খেয়ে ওঠেই দরজার সামনে দেখি বাবার কফিন! ততক্ষনে কেউ কফিন খুলে বাবার মুখ মেলে ধরেছে,আমি দেখলাম এবং গতকাল বিকেল থেকে এই পর্যন্ত জমিয়ে রাখা কান্নার সবটুকু উজাড় করে দিলাম। বাবার চেহারার দিকে তাকিয়ে দেখলাম,শেষ বাবাকে ট্রেনে তুলে দেওয়ার সময় বিদায়ের আগে মৃদু হাসি মুখে বলেছিলেন, চিন্তা করার কিছু নাই আমি ভাল থকব ঠিক সেই হাসিটাই বাবার মুখে লেগে আছে আর কফিনের উপর বাবার পায়ের কাছটাতে হাসি মুখে আরাম করে বসে আছে আমাদের সবার ছোট ভাই ২ বছর বয়সী মেহেদী। বাবা চলে গেলেন,অনেক স্বপ্ন আর অনেক কাংখিত চাওয়া পাওয়া ভেঙ্গেচুরে তছনছ হয়ে গেল। তারপর সবই ব্যর্থতার ইতিহাস,আমি বাবার কাছে পৃথিবীর আর সব সন্তানের মতই ঋনি তবে সবচাইতে বেদনাদায়ক হল সংসারের পরাজিত সেনাপতি। বাবা আজ যেখানে আছেন অবশ্যই ভাল আছেন,কারন আর সব সন্তানের দাবীর মত তার পিতাই জগতের শ্রেষ্ঠ ভাল মানুষ এটার সাথে বলতে হবে আমার দেখা সবচাইতে নিরাহংকারি একটি মানুষ যিনি আমাকেই কোনদিন তুমি ছাড়া তুই বলেনি আর বাহিরের সবাইর সাথে কেমন ব্যাবহার করে গেছেন তা বুঝে নিন। আপনাদের সবার কাছে আমার বাবার জন্য আল্লাহর খাছ রহমত নাজিল এবং দুনিয়াবি ছোটখাটো ভুল-ত্রুটি থেকে মুক্তি পাওয়ার দোয়া কামনা করছি।
” বাবার ২৪ তম মৃত্যু বার্ষিকীতে উনার মাটির ঘরে জান্নাতি বাতি জ্বলে উঠুক, বেহেশতের হিমেল বাতাস বয়ে যাক আর আল্লাহর রহমতের বারিধারা ঝড়তে থকুক অবিরাম সেই দরখাস্ত “।।
লেখকঃ
মোঃ শাহিদুল ইসলাম
প্রকাশক ও ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক
মেঘনার কাগজ
আরো পড়ুন :  আনারস প্রতীকের আদলে মাথা সাজিয়ে ভোটের প্রচার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা