সর্বশেষ

রবিবার, ২৮ জানুয়ারী, ২০২৪

Advocate Ratna wants to be the vice chairman candidate

Advocate Ratna wants to be the vice chairman candidate

Mohammad Shariful Alam Chowdhury : Advocate Asma Begum Ratna wants to be the female vice chairman of upazila parishad in Muradnagar in the upcoming elections. It is known that Asma Begum Ratna is a human rights activist and social worker with a lawyer by profession. She is also the Women Affairs Secretary of Awami League of Muradnagar Upazila. 

She contested for the post of female vice chairman in the last upazila election as well. He is leading from the front in any program for the realization of women's rights in the area. Advocate Asma Begum Ratna, who is interested in being a candidate for the election, is already campaigning in different places of the upazila, including public relations and yard meetings.

He said, I am involved with Awami League politics. Always think of working for the team. Sheikh Hasina, the daughter of Bangabandhu, is bringing new people into the leadership. Therefore, if I win the election, I want to fulfill the vision of Prime Minister Sheikh Hasina by fulfilling my duties with honesty and devotion.

বুধবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২৪

নবনির্বাচিত এমপি কালামকে হাজারো জনতার পুষ্পবৃষ্টি সংবর্ধনা

নবনির্বাচিত এমপি কালামকে হাজারো জনতার পুষ্পবৃষ্টি সংবর্ধনা

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ১৭ দিন পর কুমিল্লা -৪ দেবীদ্বার আসনের নবনির্বাচিত সাংসদ আবুল কালাম আজাদ বুধবার তার নির্বাচনী এলাকায় প্রথম ফেরার পর নজিরবিহীন সংবর্ধনায় বরণ করে নিয়েছে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীসহ স্থানীয় জনতারা।

দলীয় নেতা-কর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছা আর ভালোবাসায় সিক্ত হন কুমিল্লাা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও কুমিল্লাা- ৪ আসনের নতুন সাংসদ আবুল কালাম আজাদ। ব্যাপক শোডাউনের প্রস্তুতির কথা আগে থেকে না জানানোর পরও নেতা-কর্মীদের এমন ঢল নামবে রাজপথে তাও ছিল অপ্রত্যাশিত। তবে ধারনার চেয়েও বর্ণাঢ্য আয়োজনে এমপির গণসংবর্ধনা রূপ নেয় উৎসবে।

বুধবার সন্ধ্যায় এমপি আবুল কালামকে বহনকারী গাড়ী ও মোটরসাইকেল বহরটি দেবীদ্বার পৌরশহর থেকে ইউসুফপুর ইউনিয়নে প্রবেশ করে। সড়কের দু'দ্বারে হাজারো জনতা লাইন ধরে অপেক্ষায় থাকায় প্রায় ৩ ঘণ্টা বিলম্বে এমপিকে বহন করা গাড়ীটি ইউসুফপুরে প্রবেশ করে। মঞ্চে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে নেতা-কর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হন তিনি।

সন্ধ্যার প্রখর শীত উপেক্ষা করে  পর্যন্ত ইউসুফপুর এলাকায় বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী ও সমর্থক উপস্থিত হন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সজীব ওয়াজেদ জয় ও এমপি কালাম সম্বলিত নানা ধরনের ব্যানার, ফেস্টুন ও রং-বেরঙের প্ল্যাকার্ড নিয়ে আসেন তারা।

নেতা-কর্মীদের ভিড় ঠেলে এমপির গাড়ি বহর যখন থেকে এগিয়ে যাচ্ছিল রাস্তার দুইপাশে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে ‘ আবুল কালাম, আবুল কালাম ও শেখ হাসিনা, শেখ হাসিনা’ স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে। নেতা-কর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত হন এমপি আবুল কালাম। এ সময় এমপি কালামও দুই হাত নেড়ে তাদের অভিবাদনের জবাব দেন।

এমপি কালাম উপজেলা ও স্থানীয় শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সবার সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।

গণসংবর্ধনায় স্বাগত জানানোর সময় উপস্থিত ছিলেন  বরকামতা ইউপির চেয়ারম্যান নবনির্বাচিত এমপির বাবা আলহাজ্ব নুরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি লুৎফর রহমান বাবুল,  সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান ও গুনাইঘর উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক রাসেল সরকার, ইউসুফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকারিয়া ও আওয়ামীলীগ নেতা কাইয়ুম ভূঁইয়া।

সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২৩

কুমিল্লার জমির উদ্দিন দেশের সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী

কুমিল্লার জমির উদ্দিন দেশের সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী,  কুমিল্লা : সংসদ নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী কুমিল্লার জমির উদ্দিন। তার বয়স ২৫ বছর ৯ মাস। এক ভিডিওতে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী বলে নিজকে দাবি করেছেন। তিনি কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের গামছা প্রতীকে নির্বাচনে লড়বেন। লাকসাম নবাব ফয়জুন্নেসা সরকারি কলেজের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের ছাত্র জমিরের জন্ম ১৯৯৮ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি।

জমির উদ্দিন বলেন, আমি দেশের সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী। ১৯৯৮ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি আমার জন্ম। বঙ্গবীর কাদের সিদ্দীকি নিজে গামছা প্রতীক হাতে তুলে দিয়েছেন। লাকসাম-মনোহরগঞ্জ তথা কুমিল্লা- ৯ আসনে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলামকে হারিয়ে বিজয় আনবো। জয়ের পর উনাকে সাথে নিয়ে এলাকার উন্নয়ন করবো।

জমির বলেন, নবাব ফয়জুন্নেসা সরকারি কলেজের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের ছাত্র আমি। বাবা বীরমুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান একজন অবসরপ্রাপ্ত সেনা সৈনিক। নাথেরপেটুয়া পরানপুর গ্রামে আমার বাড়ি। আমি পড়াশোনার পাশাপাশি মায়ের দোয়া মৎস্য খামার ও মায়ের দোয়া ড্রাইভিং সেন্টার পরিচালনা করি। গ্রামে সড়ক নির্মাণ, বিবাহ প্রদানে সহযোগীতাসহ বিভিন্ন সামাজিক কাজে সময় দেই।
কুমিল্লা- ৪ : সামনাসামনি বসলেন, প্রতীক নিলেন, হ্যান্ডশেকও করলেন সেই আবুল কালাম আজাদ

কুমিল্লা- ৪ : সামনাসামনি বসলেন, প্রতীক নিলেন, হ্যান্ডশেকও করলেন সেই আবুল কালাম আজাদ

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা : কুমিল্লা-৪ (দেবীদ্বার) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল। উপজেলা নির্বাচনে এমপিকে চ্যালেঞ্জ করে তার প্রার্থী পরাজিত করে চেয়ারম্যান হয়েছিলেন আবুল কালাম আজাদ। এমপি-উপজেলা চেয়ারম্যানের মারামারি গণমাধ্যমের কল্যাণে ভাইরালও হয়েছিল। সেই আবুল কালাম আজাদ চেয়ারম্যান পদ ছেড়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। পরিস্থিতি কী হবে, আগের ঘটনা থেকে অনুমেয়।

প্রতিপক্ষের এতোকিছু মাথায় নিয়ে সোমবার রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে সামনাসামনি বসলেন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নিজের প্রতীকও গ্রহন করলেন সেই আলোচিত উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ। শুধু তাই নয় নিজের প্রতীক নিয়ে বের হওয়ার সময় একই আসনের প্রতিপক্ষীয় সরকার দলীয় প্রার্থী রাজী মোহাম্মদ ফখরুল এমপির সঙ্গে হ্যান্ডশেক করে দোয়াও চেয়েছেন বলেছেন বলে জানিয়েছেন তার সঙ্গে থাকা নেতাকর্মীরা।

এ আসনের সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল দলীয় প্রতীক নৌকা পেয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদ্য বিদায়ী উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ পেয়েছেন ঈগল প্রতীক।

সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় প্রতীক বরাদ্দ দেন জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান।

প্রতীক পেয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন এ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান- আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, নির্বাচনের জয়ের বিষয়ে এখনও কিছু বলবো না। কারণ সময় বলে দেবে পরিস্থিতি কোন দিকে যায়। তবে যদি জনগণ ভোট দিতে পারে ঈগলের জয় সুনিশ্চিত।

কুমিল্লা দেবীদ্বার আসনে নির্বাচনের মাঠে আছেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট ইউসুফ আসগর (লাঙ্গল), বাংলাদেশ সুপ্রীম পার্টির একতারা প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ শফিউল বাদশা, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের ফুলের মালা প্রতীকের প্রার্থী আজহারুল করিম মুন্সী, গণফ্রন্ট মনোনীত মাছ প্রতীকের প্রার্থী মো. আলা উদ্দিন, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ) মনোনীত টেলিভিশন প্রতীকের প্রার্থী শাহেরা বেগম। 

তবে দ্বাদশ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এমপি ও চেয়ারম্যানের মধ্যে আবারো দ্বন্দ্ব ও সংঘাত ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আতংক ও উৎকন্ঠার মধ্যে রয়েছেন ভোটার ও উপজেলার সাধারণ মানুষ।

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা খন্দকার মু মুশফিকুর রহমান বলেন, প্রার্থীদের বলবো আপনারা নিয়ম মেনে প্রচার প্রচারণা করুন। অন্যথায় আপনারা জরিমানা গুনতে হবে।

বুধবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২৩

দেবীদ্বারে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার হুমকি, ভিডিও ভাইরাল

দেবীদ্বারে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার হুমকি, ভিডিও ভাইরাল

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা : কুমিল্লা উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক লিটন সরকার নির্বাচনী সভায় স্বতন্ত্র প্রার্থী কুমিল্লা মো. আবুল কালাম আজাদকে উদ্দেশে বলেছেন, ‘বাঘের থাবা থেকে বাঁচার উপায় আছে কিন্তু রাজী ফখরুলের থাবা থেকে বাঁচার ক্ষমতা কারও নেই। রাজী ফখরুল তো পরের কথা, আগে আমাদের থাবা থেকে বাঁচ! আমি ওপেন চ্যালেঞ্জ দিলাম, কম্পিটিশন তো দূরের কথা জামানত থাকবে না। আমার আর আবু কালামের এক সেন্টার, আমি চ্যালেঞ্জ দিলাম, আয় তোর ক্ষমতা থাকলে, তোর ইউনিয়নে পারলে আমার সামনে দাঁড়া।’

গত মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দেবীদ্বার উপজেলার ভানী ইউনিয়ন যুবলীগের উদ্যোগে একটি আলোচনা সভায় এ বক্তব্য দেন কুমিল্লা উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের এ নেতা। বক্তব্যের এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে চারদিকে তোলপাড় শুরু হয়।

এ বিষয়ে জানতে লিটন সরকারকে একাধিক বার ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করে সংযোগ পাওয়া যায়নি।

স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবুল কালাম আজাদ অভিযোগ করেন, তার এ বক্তব্যের পর আমার একজন মেম্বারকে বেধড়ক পিঠিয়েছে লিটন সরকারের সন্ত্রাসী বাহিনী। এ ছাড়াও গতকাল ও রাতে তার সন্ত্রাসী বাহিনী বিল্লাল ও হুমায়ুনের নেতৃত্বে রাজামেহার ইউপি চেয়ারম্যানের ছেলে সিফাতকে রাস্তায় একা পেয়ে কুপিয়েছে। সে বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

প্রবাসী বাবাকে নিয়ে আর বাড়ি ফেরা হলোনা ছেলের

প্রবাসী বাবাকে নিয়ে আর বাড়ি ফেরা হলোনা ছেলের

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা : প্রবাসী বাবাকে বিমানবন্দর থেকে আনতে যেয়ে ফেরার পথে সড়কে প্রাণ গেল পুত্রের। বাবাসহ পরিবারের আরো ৭জন ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

নিহত যুবক মো. সাইফুল ইসলাম সাকিব (১৯) দেবীদ্বার উপজেলার গৌরসার গ্রামের গেদু সরকারের বাড়ির সৌদী প্রবাসী মো. শহীদুল ইসলাম সরকারের ছেলে। নিহত সাকিব চলতি বছর এলাহাবাদ আদর্শ কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছিল।

স্বজনরা জানার, ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার(৫ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টায়। ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে সৌদী প্রবাসী বাবাকে নিয়ে বাড়ি আসার পথে ডেমরা এলাকায় সিটি পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের সাথে সংঘর্ষে ওই দূর্ঘটনা ঘটে।

দূর্ঘটনায় মাইক্রোবাসে থাকা মো. সাইফুল ইসলাম সাকিব(১৯), তার বাবা প্রবাসী মো. শহীদুল ইসলাম(৪৫), ভাই মো. সাকিম(১০), খালু মো. মামুনুর রশিদ(৩০), ফুফাতো ভাই নাজমুল(২৪), হাসান(২৬), এবং মাইক্রো চালক আল আমিন সোহাগ(৩২)সহ ৮ জনকেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মুমূর্ষাবস্থায় সাইফুল ইসলাম সাকিব, মাইক্রো চালক আল আমিন সোহাগ ও প্রবাসী মো. শহীদুল ইসলামকে আইসিইউতে রাখা হয়। আজ বুধবার (৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৫টায় সাইফুল ইসলাম সাকিব মারা যায়।

সাইফুল ইসলাম সাকিবের মামা দেবীদ্বার ফারিয়ার সাধারন সম্পাদক আবুল বাশার জানান, তার ভগ্নিপতি মো. শহীদুল ইসলাম প্রায় ১৮- ১৯ বছর সৌদী আরব প্রবাসে থাকেন। মঙ্গলবার বিকেলে দেশে আসেন, আসার পথে সড়ক দূঘটনায় মাইক্রোবাসে থাকা চালকসহ ৮জনই আহত হন।

আহতদের মধ্যে তার বড় ভাগ্নে সাইফুল ইসলাম সাকিব আজ বুধবার সন্ধ্যায় মারা যায়। তার মরদেহ নিয়ে আজ রাতেই বাড়ি আসছি, আগামীকাল বৃহস্পতিবার ৭ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় জানাযা হবে। আহতদের মধ্যে ভগ্নিপতি শহীদুল ও চালক আল আমিনের অবস্থা আশংকাজনক এবং বাকী সকলে আশংকাজনক অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। ওই সংবাদে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

চান্দিনার ডা. প্রাণ গোপালের স্ত্রীর ২২ ভরি স্বর্ণের দাম ২১ হাজার টাকা

চান্দিনার ডা. প্রাণ গোপালের স্ত্রীর ২২ ভরি স্বর্ণের দাম ২১ হাজার টাকা

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা : কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত। তিনি এই আসনে বিগত উপনির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পাস করেন। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তিনি আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী। তাঁর হলফনামায় তিনি তুলে ধরেছেন তার সম্পদ বিবরণী।

ডা. প্রাণ গোপাল দত্তর হলফনামা বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানা যায়। বিয়ের উপহার হিসেবে ২২ ভরি স্বর্ণ পেয়েছেন তাঁর স্ত্রী। ওই স্বর্ণের দাম ধরা হয়েছে ২১ হাজার টাকা। সে হিসেবে প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম পড়েছে ৯৫৫ টাকা।

ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত হলফনামায় অস্থাবর সম্পত্তি হিসেবে নিজের ২৫ ভরি স্বর্ণ থাকার কথা উল্লেখ করেন। দাম উল্লেখ করেন চার লাখ ৫২ হাজার টাকা। সে হিসাবে তাঁর নিজের মালিকানায় থাকা স্বর্ণের ভরির দাম পড়েছে ১৮ হাজার ৮০ টাকা। 

কুমিল্লা জুয়েলারি সমিতির সভাপতি শাহ মো. আলমগীর খান জানান, আজ  বুধবার (৬ ডিসেম্বর) ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণ এক লাখ নয় হাজার ৬৭৫ টাকা এবং ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণ এক লাখ চার হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। 

২০২১ সালের ২০ সেপ্টেম্বর উপনির্বাচনে কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসন থেকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত। এবারও তিনি এই আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২৩

কুমিল্লায় এবার বাবা ও ভাইকে ছাড়া বাহারের  মুখোমুখি আফজল খানের  মেয়ে সীমা এমপি

কুমিল্লায় এবার বাবা ও ভাইকে ছাড়া বাহারের মুখোমুখি আফজল খানের মেয়ে সীমা এমপি

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা : ৩৯ বছর আগে কুমিল্লা পৌরসভা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আ ক ম বাহাউদ্দীনের মুখোমুখি হন আফজল খান। তখন আফজল খান শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি, বাহাউদ্দীন সাধারণ সম্পাদক। ১০ বছর আগে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাহাউদ্দীনের মুখোমুখি হন স্বতন্ত্র প্রার্থী আফজল খানের বড় ছেলে মাসুদ পারভেজ খান (ইমরান)।

এবার দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাহাউদ্দীনের মুখোমুখি আফজল খানের মেয়ে আঞ্জুম সুলতানা। গতকাল সোমবার মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে এই দুই প্রার্থীর প্রার্থিতাও বৈধ হয়। আগামী ৭ জানুয়ারি এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এ নির্বাচনে কুমিল্লা-৬ (আদর্শ সদর, সিটি করপোরেশন ও সেনানিবাস এলাকা) আসনে মোট প্রার্থী চারজন। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগের মনোনীত বাহাউদ্দীন, জাতীয় পার্টির এয়ার আহমেদ সেলিম, জাকের পার্টির মো. আবুল হোসেন মজুমদার।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮৪ সালে কুমিল্লা পৌরসভা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় সমর্থন নিয়ে প্রার্থী হন আফজল খান। ওই নির্বাচনে প্রার্থী হন শহর আওয়ামী লীগের তত্কালীন সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দীন। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হন বাহাউদ্দীন। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-৬ (আদর্শ সদর, সিটি করপোরেশন ও সেনানিবাস এলাকা) আসনে আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হন মাসুদ পারভেজ খান। এতে তিনি ৩৮ হাজার ২৯৩ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। মাসুদ পারভেজ ২০২২ সালের ১৫ জুন কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দেন। পরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্দেশে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। চলতি বছরের ৬ মার্চ মাসুদ পারভেজ মারা যান।

২০২১ সালের ১৬ নভেম্বর মারা যান আফজল খান। আগামী ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এবার বাহাউদ্দীনের প্রতিদ্বন্দ্বী আফজল খানের মেয়ে আঞ্জুম সুলতানা। আঞ্জুম সুলতানা সংরক্ষিত আসনের মহিলা সংসদ সদস্য, মহানগর আওয়ামী লীগের বর্তমান উপদেষ্টা ও একই শাখার আগের কমিটির সহসভাপতি ছিলেন। বাহাউদ্দীন মহানগর আওয়ামী লীগের টানা দুইবারের সভাপতি। টানা তিনবারের সংসদ সদস্য। এ ছাড়া তিনি দুইবার বিলুপ্ত কুমিল্লা পৌরসভার চেয়ারম্যান ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় চার দশক ধরে কুমিল্লায় খান পরিবারের সঙ্গে বাহাউদ্দীনের রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব। বাবা ও ভাইকে ছাড়া আঞ্জুম সুলতানা এবার প্রথমবারের মতো নির্বাচন করছেন। এর আগে আঞ্জুম সুলতানা বিলুপ্ত কুমিল্লা পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর, কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর, আদর্শ সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। ২০১৭ সালের ৩০ মার্চের কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সামান্য ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন।

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ও শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম শিকদার বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আঞ্জুম সুলতানা জিতবে।

জানতে চাইলে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ নুরুর রহমান বলেন, বাহাউদ্দীনের সঙ্গে কুমিল্লার মানুষের নিবিড় সম্পর্ক। ভোটের রাজনীতিতে ও সাংগঠনিকভাবে তিনি দক্ষ। চার দশক ধরে তিনি জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশ নিয়ে আসছেন। এবারও তিনি জয়ী হবেন। সারা জীবন তিনি ভোট করে জয়ী হয়েছেন। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বা ভোট ছাড়া তিনি কখনো জয়ী হননি। ১৯৭৩ সালের পর বাহাউদ্দীনের হাত ধরেই নৌকা এই আসনে পরপর তিনবার জয়ী হয়। খান পরিবারের সঙ্গে ভোটের লড়াইয়ে তিনি সব সময় জিতেছেন। এবারও জিতবেন।

আঞ্জুম সুলতানা বলেন, এই নির্বাচন দলীয়ভাবে সবার জন্য উন্মুক্ত। কুমিল্লার মানুষের আগ্রহে প্রার্থী হয়েছি। আশা করি নির্বাচনে জয়ী হব।

বাহাউদ্দীন বাহার বলেন, কুমিল্লার মানুষ আমাকে ১৯৮৪ সালে তরুণ বয়সে কুমিল্লা পৌরসভার চেয়ারম্যান বানিয়েছেন। আমি কুমিল্লার মানুষের জন্য সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করছি। আমার রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীরা ১৯৮৪ সালে পারেনি, ২০১৪ সালেও পারেনি। এবারও পারবে না। কুমিল্লায় আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ। শেখ হাসিনাকে এবারও এই আসন উপহার দেব।

সোমবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২৩

কুমিল্লা-০৬ সদরে ২ এমপির মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা

কুমিল্লা-০৬ সদরে ২ এমপির মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা :  কুমিল্লা-০৬  সদর আসনে মনোনয়ন পত্রের বৈধতা পেয়েছেন দুই সংসদ সদস্য। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আ ক ম বাহাউদ্দীন বাহার এমপি ও আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী আনজুম সুলতানা সীমা এমপি দুইজনের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান। 

জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী  এ আর আহমেদ সেলিম ও জাকের পার্টি মনোনীত প্রার্থী এডভোকেট মো. আবুল হোসেন মজুমদার সহ আরো একজনের মনোনয়ন বৈধ হয়েছে। মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে ১ জনের।

রোববার ও সোমবার (০৪ ডিসেম্বর) জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে দুই দিনব্যাপী জেলার ১১টি আসনের ১২১ জনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়।

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান জানান, কুমিল্লা-১ আসনে বাতিল করা হয়েছে ৬ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র,  বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে ৬ জনের।

কুমিল্লা-২ আসনে বাতিল হয়েছে ৬ জনের, বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে ৬ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র।

কুমিল্লা - ৩ আসনে বৈধ প্রার্থী ৬জন, বাতিল করা হয়েছে ৮ জনের মনোনয়নপত্র।

কুমিল্লা-৪ আসনে বৈধ প্রার্থী ১৩ জন, বাতিল করা হয়েছে একজন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র।  

কুমিল্লা-৫ আসনে বৈধ ৬ জন, বাতিল করা হয় ৫ জনের।

কুমিল্লা- ৬ আসনে মনোনয়নপত্রের বৈধতা পেয়েছেন ৫ জন, বাতিল করা হয়েছে ১ জনকে।

কুমিল্লা-৭ আসনে মনোনয়নপত্রের বৈধতা পেয়েছে ৬ জন, বাতিল হয়েছে ৪ জনের। কুমিল্লা- ৮ আসনে মনোনয়নপত্রের বৈধতা পেয়েছে ১১ জন, বাতিল হয়েছে ৪ জনের।  

কুমিল্লা-৯ আসনে ৬ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে, ৩ জনের বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। কুমিল্লা-১০ আসনে ৩ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ করা হয়েছে, ৪ জনের বাতিল করা হয়েছে। কুমিল্লা- ১১ আসনে বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে ৫ জনকে, বাতিল করা হয়েছে ৬ জনের মনোনয়নপত্র।

শনিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২৩

দেবীদ্বারের এমপি রাজী ফখরুলকে ইসির শোকজ

দেবীদ্বারের এমপি রাজী ফখরুলকে ইসির শোকজ

মোহাম্মদ শরিফুল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা : নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করায় আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী রাজী মোহাম্মদ ফখরুল এমপিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

শুক্রবার (১ লা ডিসেম্বর) কুমিল্লা-৪ (দেবীদ্বার) আসনের নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির সভাপতি ও কুমিল্লা যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. ইমাম হাসান এ নোটিশ দিলেও শনিবার সন্ধ্যায় তা গণমাধ্যম কর্মীরা জানতে পারেন।

নোটিশে উল্লেখ করা হয়, গত ৩০ নভেম্বর দেবীদ্বার সহকারী রিটার্নিং অফিসারের নিকট মনোনয়নপত্র জমা দিতে যান রাজী ফখরুল এমপি। এ সময় তিনি বহু মানুষের সমন্বয়ে মোটর সাইকেল বহরসহ মিছিল নিয়ে অভ্যর্থনা গ্রহন করেন। বিষয়টি নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণবিধির লঙ্ঘন। তার এমন আচরণ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছে, যা নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটির নজরে এসেছে। আচরণবিধি লঙ্ঘন করায় আগামী ৩ ডিসেম্বর সকাল ১১ টায়, সংসদীয় আসন-২৫২, কুমিল্লা-৪ এর অস্থায়ী কার্যালয় কুমিল্লার যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ, ২য় আদালতে স্বশরীরে বা উপযুক্ত প্রতিনিধির মাধ্যমে হাজির হয়ে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেয়া হলো।

এ বিষয়ে জানতে এমপি রাজী ফখরুলের মোবাইল ফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও তিনি কল রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।